আইটি প্রডাক্ট এবং সার্ভিস ভিত্তিক কোম্পানিতে স্ট্রেস লেভেল নিয়ে ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতা

বিভিন্ন ধরনের কোম্পানি বিভিন্ন মডেলে বিভিন্ন ধরনের টিম, সেটআপ এবং কাস্টোমারের সাথে কাজ করে। যেমন সফটওয়্যার কোম্পানি সেইম সফটওয়্যার প্যাকেজ ইকমার্স টুল ব্যবহার করে সারা পৃথিবীতে সেইম দামে সরাসরি অনলাইনে সেল করতে পারে। আবার কোন সফটওয়্যার কোম্পানি অফলাইনে এফিলিয়েট বা ব্রোকারের মাধ্যমে সেল করতে পারে। এখানে আবার বিভিন্ন লেয়ার এবং কাস্টমাইজেশন থাকতে পারে। আবার আরেকটা সফটওয়্যার কোম্পানি শুধু একটা ক্যাটাগরির এক্সপার্ট হতে পারে এবং প্রত্যেকটা ক্লায়েন্ট এর জন্য ইউনিক সলিউশন ডেভেলপ করতে পারে; যার ডিল আবার অনলাইন, অফলাইন মিলিয়ে হতে পারে।

সার্ভিস এর ক্ষেত্রেও এমন মডেল হতে পারে। অর্থাৎ, যারা কিছু বানায় না, কোন প্রডাক্ট নেই; শুধু সেবার বিপরীতে মাসিক, বাৎসরিক বা নির্দিষ্ট কাজের জন্য চার্জ করে।

১। Automated Online Product Sales.
২। Automated Online Service Sales.
৩। Offline Service Sales.

এখন পর্যন্ত এই তিন ধরনের কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ হয়েছে। ২০১৮ তে আমার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে স্ট্রেস লেভেল কমিয়ে একটা শান্তির কাজ করা। তাই এই পোস্টে কোথায় কেমন স্ট্রেস লেভেল ফেস করতে হয়েছে, তা বর্ননা করবো।

অটোমেটেড অনলাইন প্রডাক্ট সেলস

অটোমেটেড অনলাইন সেলস এর ক্ষেত্রে Proposal, Negotiation, Requirement Analysis, Customer Meeting, Team Meeting, Contract, Invoice সহ নানান ক্যাচাল থেকে দুরে থাকা যায়। কারণ ক্লায়েন্ট বা কাস্টমার ওয়েব সাইটে এসে নিজে নিজেই কিনে নিতে পারে আর একটা Terms of Service লিঙ্ক ই যথেষ্ট।

কাজ শুধু মার্কেটিং আর সাপোর্ট এর।

এখানে যে স্ট্রেস খুব কম তা না। এখানেও বিশাল বিশাল ওয়ার্কফ্লো থাকে। তবে এখানে বেশিরভাগ কাজ অটোমেটেড এবং অনলাইন বেজড হওয়াতে হারিয়ে যাওয়ার চান্স খুব ই কম। প্রত্যেক লেভেলে কোন না কোন ভাবে নোটিফিকেশন পাওয়ার ব্যবস্থা থাকে আর কাস্টমাররাও ইমেইল বা অন্যান্য চ্যানেলে যথেষ্ট একটিভ থাকে। তাই একেক কাস্টোমারের পেছনে সময় ও কম খরচ হয় আর স্ট্রেস তুলনামূলক আমার কাছে কম মনে হয়ছে।

অটোমেটেড অনলাইন সার্ভিস সেলস

এটা অটোমেটেড প্রডাক্ট সেলস এর সাথে ৯০% মিলে যায়। এখানেও Proposal, Negotiation, Requirement Analysis, Customer Meeting, Team Meeting, Contract ইত্যাদি বিষয় নেই এবং ইনভয়েসিং এর কাজ সিস্টেম থেকে সরাসরি হয়।

তাই বিজনেস টিম এর একটা নির্দিস্ট সময় পরপর একাউন্টস ডিপার্টমেন্ট এর সাথে বসে এক্সসেল শিট বানাতে হয়না। উভয়ে আলাদা এবং স্বাধীন। যার যার কাজ আলাদা আলাদা করতে পারে এবং এখানেও ইনফরমেশন বা টার্গেট মিস করার সুযোগ নেই বললেই চলে।

এই ধরনের কোম্পানি গুলো অনেক বড় হয় বিধায় কাজের পরিধি অনেক কম হয়। ফলে স্ট্রেস লেভেল ও তুলনামূলক কম। কিন্তু একই কারণে পদোন্নতি হওয়ার সুযোগও কম।

তবে এখানে কোন প্রডাক্ট না থাকায় আফটার সেলস সার্ভিস এ জটিলতা কম হয় এবং সমস্যা গুলো কমন হওয়ায় স্ট্রেস লেভেল অনেক কম মনে হয়েছে।

অফলাইন সার্ভিস সেল

এটা যেকোনো গতানুগতিক কোম্পানির মত কাজ করে। এখানে কাস্টোমারের কাছ থেকে রিকয়ারমেন্ট নিয়ে বিভিন্ন টিমের সাথে মিটিং এ বসতে হয় এনালাইসিস এবং এস্টিমেট এর জন্য। এরপর প্রপোজাল বানিয়ে পাঠাতে হয়। পছন্দ হলে ক্লায়েন্ট কনফার্ম করে। Onetime Project হলে সরাসরি ইনভয়েস পাঠাতে হয়। Recurring Service হলে আবার কন্ট্রাক্ট বানাতে হয়, সাইন করা হলে তারপর ইনভয়েস।

কাজ শুরু হওয়ার পর রিকয়ারমেন্ট চেঞ্জ হয়, কাজে জটিলতা দেখা দেয়, সময় বেশি লাগে। ফলে কাজের পরিধি পরিবর্তন, খরচ বৃদ্ধি সহ নানান বিষয় নিয়ে মিটিং করে কন্ট্র্যাক্ট এ পরিবর্তন আনতে হয় বা আলাদা করে কন্ট্র্যাক্ট বানাতে হয়।

এতোসব পেপারওয়ার্ক এবং মিটিং অনলাইনে করা গেলেও আফসোস একটু কম হতো। বেশিরভাগ আইটি সার্ভিস বেজড কোম্পানি গুলো ডিল করে বিশাল কর্পোরেটগুলোর সাথে, যাদের ইমেইল পাঠিয়ে চেক করার জন্য আবার ফোন করে বলা লাগে।

এই ধরনের কোম্পানিতে কমিউনিকেশন খুবই জরুরি বিষয়। কারণ একবার কিছু ভুলে গেলে, খেই হারিয়ে ফেললে বা পরে করবো ভেবে বা কারো উত্তরের জন্য অপেক্ষা করে ফেলে রাখলে প্রজেক্ট মিস হয়ে যাবে।

আর বারবার বিভিন্ন টিমের থেকে সাহায্য প্রয়োজন হওয়ায় ডিল ক্লোজ করতে দেরি হওয়াটা একেবারেই কমন সিনারিও।
এটা এভয়েড করার জন্য অতিরিক্ত কৌশলী না হলে কোম্পানিতে লস হওয়া অবধারিত।

প্রত্যেকটা প্রজেক্ট, তার ভিতরে প্রত্যেকটা ডিসকাশন এবং টাস্ক এ খেয়াল রাখার কোন বিকল্প নেই। আর এক সময় একটা প্রজেক্ট নিয়েও চিন্তা করা সম্ভব না। একই সাথে ২০ টা প্রজেক্ট রানিং থাকতে পারে যার জন্য প্রায় ১৬ জন আলাদা ভেন্ডরের ৩৫ টা টিম কাজ করছে। এদের মধ্যে সমন্বয়ের দিকে খেয়াল রাখা বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজারের দায়িত্ব।

এখানে ফেইল করার চান্স এবং স্ট্রেস লেভেল কেমন তা এখন নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারছেন!

তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে এই ধরনের কোম্পানিতে স্যালারি রেঞ্জ যথেষ্ট ভালো এবং ভবিষ্যতে উন্নতির সুযোগ অনেক বেশি। আর এইসব কোম্পানিতে ম্যানেজমেন্ট পজিশনে কম্পিটিশনও খুব কম। কারণ এই ধরনের স্ট্রেস এবং রিস্ক নেওয়ার ক্ষমতা খুব কম মানুষের হয়।

Default image
Sekander
Love to scroll social media and watch food vlogs. Trying to get my bachelors degree in business administration and working as a business development consultant for software companies at home and abroad.
Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.